ব্রেকিং নিউজ:
জঙ্গিবাদ ও সাম্পদায়িকতা কখনো মহাজোটের বিকল্প হতে পারে না : তথ্যমন্ত্রী
    নভেম্বর ২৭, ২০১৩, বুধবার,     ১০:২৭:৫৯

 

তথ্য এবং সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, দেশ যখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অপশাসনের চক্রান্ত রুখে এগিয়ে চলেছে, তখন বেগম খালেদা জিয়া ব্যস্ত যুদ্ধাপরাধী ও জঙ্গিবাদ তালেবান রাজত্ব কায়েমের জন্য। কিন্তু বেগম জিয়ার নেতৃত্বাধীন জঙ্গিবাদ, সাম্পদায়িক ও তালেবানী সরকার কখনো মহাজোটের বিকল্প হতে পারে না।
বুধবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউর কর্নেল তাহের (অব:) মিলনায়তনে শহীদ ডা: শামসুল হক মিলনের ২৩তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাসদ আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
এর আগে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে শহীদ চিকিৎসক নেতা মিলনের স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দেন তিনি।
১৯৯০ সালের ২৭ নভেম্বর এরশাদবিরোধী আন্দোলনে নিহত হন বিএমএ’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিলন। দিনটি “শহীদ মিলন দিবস’ হিসেবে পালন করে থাকে দেশের রাজনৈতিক দল ও সংগঠনগুলো।
মিলন ও ছাত্রদল নেতা নাজির উদ্দিন জেহাদের মৃত্যুতে আন্দোলন বেগবান হয়, ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে পতন ঘটে এরশাদের।
জাতীয় পার্টির সঙ্গে থাকার বিষয়ে ইনু দেশের বর্তমান প্রেক্ষাপট ব্যাখ্যা করে বলেন, “যুদ্ধাপরাধী, জঙ্গিবাদ ও নাশকতাকে মোকাবেলা করাই এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। জাতীয় পার্টিও এই চ্যালেঞ্জ নিয়েছে বলেই তাদের সঙ্গে ১৪ দলের সম্পর্ক রয়েছে।”
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ডা: মিলন রক্ত দিয়ে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে গেছেন। সে রক্তকে আমরা বৃথা যেতে দিতে পারি না।
তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া অবৈধ ভাবে ক্ষমতা চায়। জঙ্গিবাদ, সাম্পদ্রায়িকতা এবং তেতুঁল হুজুরদের ওপর ভর করে মহাজোট সরকারকে ক্ষমতাচ্যূত করতে চায়।
বেগম জিয়াকে আলোচনা বা সংলাপে বসার আহবান জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, দেশকে রক্ষা করতে নির্বাচনের বিকল্প নেই। এখনও সময় আছে সংলাপে আসুন ,বসুন এবং প্রস্তাব দিন।
চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “তফসিল ঘোষণার সঙ্গে সংলাপের সম্পর্ক নেই। সংলাপের সম্ভাবনা শেষ হয়ে যায়নি। প্রার্থিতা বাছাই এবং বাতিল পর্যন্ত সংলাপের সুযোগ রয়েছে।”
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জাসদের সাধারণ সম্পাদক শরীফ নুরুল আম্বিয়া। এতে সভাপতিত্ব করেন জাসদের সহ-সভাপতি মীর হোসেন আখতার এবং বক্তব্য রাখেন সংগঠনের স্থায়ী কমিটির সদস্য শিরিন আখতার, নাজমুল হক প্রধান, প্রমুখ।
সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি মোড়ে শহীদ মিলনের স্মৃতিস্তম্ভে জাসদের পাশাপাশি অন্য রাজনৈতিক দলগুলোও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়।
এর মধ্যে ছিল সিপিবি, বাসদ, গণতান্ত্রিক বামমোর্চা, ছাত্রলীগ, ছাত্র ইউনিয়ন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট। মিলনের পরিবারের পাশাপাশি মিলন সংসদ, বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ),স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ,ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (ড্যাব)ও শ্রদ্ধা জানায়।

এম. এস./১৭:৪৫
বিভাগ: শীর্ষ সংবাদ   দেখা হয়েছে ৬৭৭৪ বার.

 

শেয়ার করুন :

 
মন্তব্য :